মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

গ্রাম আদালত

গ্রাম আদালতঃ গ্রাম আদালত এর প্রধান চেয়ারম্যান সাহেব এবং গ্রাম আদালতে বাদী ও আসামী পক্ষদ্বয়ের দুই (২) জন করে প্রতিনিধি নিয়োগ এর বিধান রয়েছে যার মধ্যে ১ জন করে ইউপি সদস্য প্রতিনিধি হিসেবে মনোনীত হবে ।

গ্রাম আদালতের এখতিয়ারঃ অপরাধ যে ইউনিয়নে সংঘটিত হয় বা নালিশের কারন যে ইউনিয়নে উদ্ভব হয় সেই ইউনিয়নে বিরোধের পক্ষগন সাধারণতঃ বসবাস করলে গ্রাম আদালত গঠিত হবে এবং মামলার বিচার করার এখতিয়ার লাভ করবে । (ধারা-৬)

গ্রাম আদালতের সিদ্ধান্তের চুড়ান্ত প্রকৃতিঃগ্রাম আদালত সিদ্ধান্ত যদি সর্বসম্মাতক্রমে অথবা চার বনাম এক সংখ্যাধিক্যে গ্রহন করা হয়, সেক্ষেত্রে উক্ত সিদ্ধান্ত পক্ষগণের উপর বাধ্যতামূলক হবে এবং বিধান অনুসারে বলবৎযোগ্য হবে।

গ্রাম আদালত অবমাননাঃ কোন ব্যক্তি আদালত চলাকালে আদালত বা আদালতের কোন সদস্যের প্রতি অবমাননা প্রদর্শন করলে অথবা দলিল উপস্থাপন করতে ব্যার্থ হলে অথবা আদালতের প্রশ্নের উত্তর দিতে অস্বীকার করলে অথবা শপথ গ্রহণে অস্বীকার করলে অথবা নিজের প্রদত্ত বিবৃতিতে স্বাক্ষর দিতে অস্বীকার করলে আদালত অবমাননার দোষে দোষী সাব্যস্ত হবে । উল্লেক্ষিত ক্ষেত্রে দোষী ব্যক্তিকে গ্রাম আদালত অনুর্ধ্ব পাচশত টাকা জরিমানা দন্ডে দন্ডিত করতে পারবেন । (ধারা-১১)

 

যে সকল বিষয় আদালত হতে পারে

 

 

 ফৌজদারী বিষয়

১। চুরি সংক্রান্ত বিষয়াদি

২। ঋগড়া -বিবাদ

৩। শক্রতামূলক ফসল ,বাডি বা অন্য কিছুর ক্ষতি সাধন

৪। গবাদী পশু হত্যা বা ক্ষতিসাধন

৫। প্রতারণামুলক বিষয়াদি

৬। শারিরীক আক্রমণ ,ক্ষতি সাধন, বল প্রয়োগ করে ফুলা ও জখম করা ।

৭। গচিছত কোনো মুল্যবান দ্রব্য বা জমি আত্নসাৎ

 দেওয়ানী বিষয়

১। স্হাবর সম্পতি দখল পুনরুদ্ধার

২। অস্হাবর সম্পত্তি বা তার মূল্য আদায়

৩। অস্হাবর সম্পত্তি ক্ষতিসাধনের জন্য ক্ষতিপূরণ আদায়

৪। কৃষি শ্রমিকদের প্রাপ্য মজুরী পরিশোধ ও ক্ষতিপুরণ আদায়ের মামলা

৫। চুক্তি বা দলিল মূল্যে প্রাপ্য টাকা আদায়