মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভাষা ও সংস্কৃতি

দেহেরগতি (বরিশাল) : শিক্ষা, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের পাশাপাশি রাজনৈতিক ইতিহাস সমৃদ্ধ স্থান বৃহত্তর দেহেরগতি। দেহেরগতি রাজনৈতিক অঙ্গনে যাদের পদচারণা ছিল তাদের মধ্যে স্পিকার আঃ জব্বার খান,রাসেদ খান মেনন, বেগম সেলিমা রহমান,এর  নাম উল্লেখযোগ্য।

 

রাজনৈতিক ঐতিহ্যের পাশাপাশি এক সময়ে শিক্ষা, সাংস্কৃতি ও ক্রীড়ায় বৃহত্তর দেহেরগতি   ইশ্বর নারায়ন ইংরেজী উচ্চ বিদ্যালয়ের (রানী দীনমনী স্কুল) ঐতিহ্য দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। আজ সে ঐতিহ্য অনেকটা বিলুপ্তির পথে। শিক্ষায় ও এখানে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে যশোরে শিক্ষা বোর্ডে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করে এখানকার মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরা। শিক্ষার প্রতিভা বিকাশের সাথে সাথেই দেহেরগতি সাংস্কৃতি অঙ্গনের ঐতিহ্যও ছিল জাতীয় পর্যায়ের দাবীদার। যার অন্যতম উজ্জল নক্ষত্র দেহেরদতি গ্রামের বাসিন্দা জনাব, মালেক দারোগার পুত্রদয় জনাব মাসুদ পারভেস সোহেল রানা, ও রুবেল রানা  ভাগ্নী তানিয়া । ত্রিশ শতক পর্যন্ত চন্দ্রদ্বীপে বাংলা ভাষা লালিত পালিত হয়েছে বাংলা ভাষার অন্যতম স্থান বাকলায়। বাকলা ছিল প্রাচীন সাংস্কৃতির প্রথম স্থান। লক্ষণ সেনের সভাকবি ছিলেন গোবর্ধ্বন আচার্য্য। ক্রীড়াঙ্গনে যে গৌরব সারা বাংলায় ছড়িয়ে পড়েছিল তা আজ প্রায় রূপ কথায় পরিণত হয়েছে। প্রাচীন স্থাপত্য সমৃদ্ধের স্বাক্ষর আজও গ্রাম বাংলায় ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে বহু প্রাচীন স্থাপত্য।