মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

দেহেরগতি ইউনিয়নের ইতিহাস

 

বাংলাদেশের একটি প্রাচিন গ্রামের নাম দেহেরগতি যেটা বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম দিকে অবস্থিত, বিটিশ আমল থেকে দিনার নামে গ্রামটি পরিচিত ছিল । পরবর্তিতে যেহেতু এ্ গ্রামে বেশিরভাগ পরিবার হিন্দু জমিদার ছিল বলে দিনার থেকে দেহেরগতি নামে পরিবর্তন করে রাখে এবং ততকালীন পঞ্চায়েত গঠনে তিনটি গ্রাম যেমন, দেহেরগতি,রাকুদিয়া,এবং বাহেরচর মিলে পঞ্চায়েত হয় এবং দেহেরগতি গ্রামের পরিবার গুলেো শিক্ষিত ও জমিদার থাকায় পঞ্চায়েতও দেহেরগতির ছিল ও  সে থেকে দেহেরগতি নামে ইউনিয়ন পরিষদ এর নাম করন করা হয়। এখানে নদ-নদী, খাল-বিল, অরণ্যওপ্রাকৃতিকবৈচিত্র্যেসমৃদ্ধ-

 

মুসলমানদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান:

 

যেমন, মিলাদ,মাহফিল , দোয়া সব  হয়।  এখানকার মুসলমানরা সাধারণভাবে অত্যন্তধর্মপ্রাণ।

তারা সকল প্রকার ধর্মীয় আচার  অনুষ্ঠান পালনকরে। প্রায় প্রত্যেক গ্রামেইছোট-বড় মসজিদআছে।মসজিদ গুলোয় শুক্রবারে গ্রামের লোকজন একত্রে সমবেত হয়ে জুমার নামাজ আদায়  করে।

 

ধর্মীয়উৎসব:

 

মুসলমানরাবিপুলউৎসাহএবংউদ্দীপনারমধ্যদিয়েঈদুলআজহা, ঈদুলফিতরওঈদেমিলাদুন্নবীএইতিনটি

ধর্মীয়উৎসব

পালন করে থাবেন। শহরও গ্রামাঞ্চলে যথেষ্ট মর্যাদার সঙ্গে এদিন তিন টি পালন করা হয়।

 

হিন্দু:

 

সংখ্যার দিক দিয়ে মুসলমানদের পরেই   এ ইউনিয়নের শূদ্রও বর্ণহিন্দুদেরস্থান।

অতীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে বর্ণহিন্দুদের সংখ্যাইছিলবেশি।এ দের জীবিকা ওকর্মসংস্থান সম্পর্কে জনসংখ্যা পরিসংখ্যানে বিশেষ তথ্য পাওয়াযায়না। ব্রাহ্মণ ওকায়স্ থশ্রেণীরলোকেরা বর্ণহিন্দু। এদেরমধ্যে একমাত্র কায়স্থরাইকৃষিকর্মেনিয়োজিতছিল। নিম্নবর্ণেরমধ্যেনমঃশূদ্রেরপ্রাধান্যইছিলবেশি। খাদ্য: ভাত, মাছ, ডাল আর শাকসবজিই হচ্ছে এখানকার মানুষের দৈনন্দিন জীবনেরপ্ রধানখাদ্য। হাঁস ওমুরগিপ্ রচুর পরিমাণে পাওয়াযায়। বিভিন্ন অতিথি আপ্যায়নে গ্রামের সাধারণ মানুষ গরু-হাঁস-মুরগির মাংস পরিবেশন করে থাকে। দুধ যদিওসকলের খুব প্রিয় তবু দাম বেশি থাকায় গরীব লোকেরা তা খুব কমই খেয়েথাকে। গরীব লোকদের সাধারণ খাবার হচ্ছে মাছ-ভাত। গ্রামে যাদের মাছ কিনে খাওয়ার সামর্থ্যনেই, তারা খাল-বিল থেকে মাছ ধরেখায়।

 

খেলা-ধূলা: 

 

বিশেষ তগ্রামাঞ্চলে, কাবাডি, ভলি বল ওহা-ডু-ফুটবল ,ক্রিকেট,খেলা অত্যন্ত জনপ্রিয়।নদীতেঅনেক

সময় নৌকা-বাইচ অনুষ্ঠিত হয়। এউপলক্ষে প্রতি যোগীতার নৌকাগুলো মনের মত সাজে সজ্জিত করা হয়।

 

সংগীতএবংনৃত্য: ভাটিয়ালি, রাখালি, মুর্শিদি, জারিএবংসারিগানএঅঞ্চলেঅত্যন্তজনপ্রিয়।যাত্রা, কবি-গান, নাটকএবংপুঁথিপাঠেরওপ্রচলনদেখাযায়।বিভিন্নধরনেরলোকসঙ্গীতেরওযথেষ্টজনপ্রিয়তাআছে।